২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার

হিন্দু হত্যার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান আরসার

print
নেপিদো: মায়ানমারের রাখাইনে হিন্দুদের হত্যার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে রোহিঙ্গা স্বাধীনতাকামীদের সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)। উত্তর রাখাইনের একাধিক গণকবর থেকে দু’দিনে কথিত ৪৫ হিন্দুর মরদেহ উদ্ধারের পর মায়ানমার সেনাবাহিনী এই হত্যায় আরসার স্বাধীনতাকামীরা জড়িত বলে অভিযোগ করে।

গত মাসে রাখাইনে সেনাবাহিনী ও রোহিঙ্গা স্বাধীনতাকামীদের সংঘর্ষের পর সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। এরপর প্রায় ৪ লাখ ৮০ হাজার রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে।

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে মায়ানমার ‘জাতিগত নিধন’ অভিযান চালাচ্ছে বলে জাতিসংঘের অভিযোগের পর দেশটির সরকারের সঙ্গে বাগযুদ্ধ চলছে। জাতিসংঘের অভিযোগকে প্রত্যাখ্যান করেছে মায়ানমার। বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মায়ানমারে দশকের পর দশক ধরে রোহিঙ্গারা নিপীড়নের শিকার হয়ে আসছে।

রাখাইনের যে এলাকার গণকবর থেকে নারী শিশুসহ কথিত ৪৫ হিন্দুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে, বুধবার মায়ানমার সেনাবাহিনী সেখানে অল্প কয়েকজন সাংবাদিককে নিয়ে যায়।

২৫ আগস্ট রাখাইনে এই গণহত্যার জন্য রোহিঙ্গা স্বাধীনতাকামীদেরকে দায়ী করেছে মায়ানমার সেনাবাহিনী। একই দিনে রাখাইনে পুলিশি তল্লাশি চৌকিতে রোহিঙ্গারা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এই হামলার পর থেকে রাখাইনে রোহিঙ্গাবিরোধী কঠোর অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী।

হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগের ব্যাপারে এই প্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতি দিয়েছে আরসা। এতে বলা হয়েছে, আরসা এবং এর কোনো সদস্যই হত্যা, যৌন সহিংসতা অথবা জোর করে সংগঠনে নিয়োগের মতো অপরাধের সঙ্গে জড়িত নয়।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে দেয়া এক টুইট বার্তায় ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের দোষারোপ না করতে সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আরসা।

মতামত

প্রতিদিনের সর্বশেষ সংবাদ পেতে

আপনার ই-মেইল দিন

Delivered by FeedBurner

আর্কাইভ

এপ্রিল ২০১৮
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০